34.1 C
Durgapur
Wednesday, May 19, 2021

তারাপীঠে সাড়ম্বরে পালিত মা তারার আবির্ভাব তিথি

নিজস্ব সংবাদদাতা , বীরভূম: আজ শুক্লা চতুর্দশী , প্রাচীনকাল থেকেই এই তিথি মায়ের আবির্ভাব তিথি হিসাবে পালিত হয়ে আসছে তারাপীঠে (Tarapith) । আজকের এই বিশেষ দিনে তারাপীঠের মন্দিরে ভিড় জমান রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষ । তবে পরিস্থিতির কারণে এবারে ছবিটা যদিও ভিন্ন।

সারা বছর তারাপীঠে (Tarapith) উত্তরমুখী অবস্থায় বিরাজমান মা তারার মূর্তি পূজিত হলেও এদিন পশ্চিমমুখে বসিয়ে আরাধনা করা হয় মায়ের। ভোরবেলায় মূল মন্দির থেকে বিগ্রহ বের করে মন্দিরের সামনের বিরাম মঞ্চে রেখে চলে পুজো-অর্চনা।

কথিত আছে শুক্লা চতুর্দশীর দিনে মা তারার আবির্ভাব হয়েছিল । বছরের এই একটি দিনেই দেবীকে মূল মন্দিরের গর্ভগৃহ থেকে বাইরে নিয়ে আসা হয়। মন্দিরের সামনে জীবিতকুণ্ড থেকে জল এনে স্নান করানোর পর রাজবেশে সাজেন মাতারা। এই দিন তারামা পশ্চিম মুখে পূজিতা হন , কারণ পশ্চিম দিকে মায়ের ছোট বোন , মলুটি গ্রামের দেবী মা মৌলিক্ষা অবস্থিত।

এইদিনে সকলেই মাকে স্পর্শ করে পুজো দিতে পারেন । নিত্য দিন দুপুরে মাতারার অন্নভোগ হলেও এই দিনে দুপুরে কোনও ভোগ হয়না । সেই কারনে তারাপীঠে (Tarapith)মাতারার সেবাইতদের বাড়িতেও কোনও রান্না হয়না। সন্ধ্যাবেলা মুল মন্দিরে নিয়ে যাওয়া হয় মাতারার বিগ্রহ। তারপর মায়ের উদ্দেশ্যে ভোগ নিবেদন করা হয় , করা হয় আরতি।

কথিত আছে তারাপীঠের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া দ্বারকা নদ ধরে বানিজ্য করতে যাওয়ার সময় তারাপীঠ নোংরা করেছিলেন বণিক জয় দত্ত। সেই সময় সাপের কামড়ে জয় দত্ত বণিকের পুত্রের মৃত্যু হয় । বণিকের ভৃত্যরা রান্না করার জন্য কাটা শোল মাছ নদী সংলগ্ন পুকুরে ধোয়ার জন্য নিয়ে যায়। পুকুরের জলে কাটা মাছ গুলি ধুতে যাওয়ার সময় মাছগুলি বেঁচে ওঠে ।

অলৌকিক এই ঘটনার কথা বণিককে জানালে বণিক তার মৃত ছেলেকে সেই পুকুরের জলে স্নান করান। মৃত পুত্র জয় তারা জয় তারা বলে ফের বেঁচে ওঠেন । সেই রাতে মাতারার মন্দির প্রতিষ্ঠার স্বপ্নাদেশ পান জয় দত্ত বণিক। দিনটি ছিল শুক্লা চতুর্দশী । সেই দিনেই প্রথম তারাপীঠে (Tarapith) জয় দত্ত বণিক মাতারাকে প্রতিষ্ঠা করে পুজো শুরু করেন । তারপর থেকে এই দিনটি মাতারার আবির্ভাব দিবস হিসাবে পালিত হয়ে আসছে।

এই মুহূর্তে

x