29 C
Durgapur
Friday, May 7, 2021

‘সৌমিত্র’ অধ্যায়ের অবসান , চোখের জলে বিদায় ‘অপুকে’

ডিজিটাল ডেস্ক, জেলার খবর: সত্যজিত রায়ের আঁকা ফেলুদার ইলাস্ট্রেশনগুলো অবিকল যেন তাঁর মতো দেখতে। ছয় ফুট লম্বা, হাতে চারমিনার, স্যুট বুট পরিহিত মগজাস্ত্রে শান দেওয়া বাঙ্গালীর চোখে সুপার হিরো মন্ত্রী সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় (Soumitra Chatterjee) । আজ বাঙালির সূর্বকালের প্রিয় সেই অভিনেতা চলে গেলেন চিরঘুমের দেশে।

বার বার বলেছেন শুটিং না করলে বেঁচে থেকে কি লাভ! কথাটা যে তিনি নেহাৎ আবেগে বলেছেন তা নয়, তিনি জানতেন তাঁর বেঁচে থাকার আসল রসদ লুকিয়ে আছে লাইট, ক্যামেরার দেশে। সুপার জেন্টালম্যান লুক, রোমান্টিক দুটো চোখ, দৃঢ় কণ্ঠস্বর আর বুদ্ধিদীপ্ত অভিনয়-তামাম বাঙ্গালীকে প্রেম করতে শিখিয়েছে যুগ যুগ ধরে। কাজের প্রতি অসম্ভব ভালোবাসা আর কাজ করার একবুক তৃষ্ণা মানিকবাবুর অপুকে প্রত্যেক বাঙালির হৃদয়ে স্থান করে দিয়েছে।

গত ৬ অক্টোবর থেকে লড়াইটা চলছিল। এক মাসেরও বেশি সময় ধরে ভর্তি ছিলেন হাসপাতালে। অবশেষে আজ এল সেই অভিশপ্ত দিন। বেলা বারোটা পনেরো নাগাদ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়(Soumitra Chatterjee) । গতকালই অভিনেতার শারীরিক পরিস্থিতি নিয়ে আশার যে কোনো আলো নেই তা জানিয়ে দিয়েছিলেন চিকিৎসকেরা। এদিন সকাল থেকেই তাঁর শারীরিক অবস্থা আরও সংকটজনক হয়ে পড়ে। ১২ টা ১৫ নাগাদ অভিনেতার প্রয়ানের খবর ঘোষণা করে বেলভিউ হাসপাতাল

মহানায়কের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই হাসপাতাল চত্বরে ভিড় জমাতে শুরু করেন অনুরাগীরা। বেলা আড়াইটে নাগাদ বেলভিউ থেকে শববাহী যানে করে অভিনেতার দেহ নিয়ে যাওয়া হয় তাঁর গল্ফগ্রিনের বাড়িতে। সেখানে কিছুক্ষণ রাখার পর বেলা তিনটে নাগাদ টেকনিশিয়ান স্টুডিওতে নিয়ে যাওয়া হয় প্রবাদপ্রতীম শিল্পীর দেহ। এরপর রবীন্দ্রসদন হয়ে কেওড়াতলা মহাশ্মশানের উদ্দেশে শুরু হয় অন্তিম পদযাত্রা।

অভিনেতা, অভিনেত্রী, রাজনীতিবিদ, প্রশাসনিক কর্তারা ছাড়াও সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের (Soumitra Chatterjee) অন্তিম যাত্রায় যোগ দিয়েছিলেন তাঁর অসংখ্য অনুরাগী।কেওড়াতলা মহাশ্মশানে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে গান স্যালুট দিয়ে সম্মান জানানো হয় বর্ষীয়ান এই অভিনেতাকে। শেষ শ্রদ্ধা জানানোর পর পূর্ণ মর্যাদায় সম্পন্ন হয় শেষকৃত্য।

এই মুহূর্তে

x