33.7 C
Durgapur
Monday, June 14, 2021

আয়োজিত হয়ে গেলো বিষ্ণুপুরে ৩৩ তম সাংস্কৃতিক উৎসব

নরেশ ভকত, বাঁকুড়াঃ সগৌরবে শুরু হলো ৩৩তম বিষ্ণুপুর উৎসব। এদিন এই মেলা মহা সমারোহে আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন করেন রাজ্যের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ণ এবং জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি বিভাগের রাষ্ট্র মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা। উপস্থিত ছিলেন বাঁকুড়া জেলাশাসক এস অরুণপ্রসাদ, বাঁকুড়া পুলিশ সুপার কটেশ্বর রাও, জেলাপরিষদের সভাধিপতি মৃত্যুঞ্জয় মুর্মু সহ সরকারি আধিকারিকরা। এই সাংস্কৃতিক মেলা প্রাঙ্গণে উদ্বোধনী সংগীত পরিবেশন করেন বিষ্ণুপুর রামশরণ সঙ্গীত মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ সুজিত গঙ্গোপাধ্যায়ের সহ ছাত্রছাত্রীরা। মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা উনি বলেন ‘মুল্লরাজ ইতিহাস এবং মন্দিরনগরী বিষ্ণুপুর শিল্প-সংস্কৃতির পীঠস্থান। তাছাড়া এই সময় অনেক পর্যটক বিষ্ণুপুরে বেড়াতে আসেন। সেই কুটীরশিল্প এবং পর্যটনের প্রসার ঘটাতে এই মেলার আয়োজন। ৫ দিন মেলায় জিনিসপত্র বিক্রি করে শিল্পীরা কিছু পয়সা ঘরে তুলতে পারেন। এবার করোনা পরিস্থিতির জন্য আমরা সাধারণের কাছে আবেদন রাখছি যে সবাই মাস্ক ব্যবহার করুন এবং বারবার হাত স্যানিটাইজ করুন’।

রাজ্য পর্যটন, তথ্য ও সংস্কৃতি বিভাগ সহ একাধিক দফতরের সহযোগিতায় বিষ্ণুপুর হাইস্কুল এবং কেজি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের মাঠে বুধবার থেকে শুরু হল পর্যটন ও কুটীরশিল্পর এই মেলা। ৫ দিনের এই মেলা চলবে আগামী ২৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত। মেলার মাঠে জেলা হস্তশিল্পীদের জন্য একাধিক স্টল করা হয়েছে। তাঁদের জন্যও পৃথক স্টলের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। এর পাশাপাশি ৫ দিনের মেলায় স্থানীয় শিল্পীদের এবং কলকাতা থেকে আসা সঙ্গীত শিল্পীদের অনুষ্টানের জন্য সংগীত গুরু যদুভট্ট ও প্রখ্যাত সাংবাদিক বাঁকুড়ার ভূমিপুত্র রামানন্দ চট্টোপাধ্যায়ের নামে পৃথক দুটি মঞ্চ করা হয়েছে। করোনা পরিস্থিতির জন্য মেলার বাজেট প্রায় অর্ধেকে নামিয়ে আনায় এবার মুম্বাইয়ের কোনো শিল্পী আনা হচ্ছে না। তবে কলকাতার বিশিষ্ট সংগীত শিল্পীদের অনুষ্টান দেখার সুযোগ মিলবে। বিষ্ণুপুর ঘরানার শিল্পীদের তালিকায় থাকছেন বর্ষীয়ান শিল্পী ডঃ দেবব্রত সিংহ ঠাকুর, সুজিত গঙ্গোপাধ্যায়ের, বামাপদ চক্রবর্তী, জগন্নাথ দাশগুপ্ত প্রমুখ।

এবার মেলার মাঠে সদ্যপ্রয়াত অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের স্মৃতির উদ্দেশ্যে তাঁর অভিনীত সিনেমার ছবি দিয়ে একটি গ্যালারি করা হয়েছে। মেলা কমিটির সচিব তথা বিষ্ণুপুর মহকুমাশাসক অনুপ কুমার দত্ত জানান, সদ্যপ্রয়াত বিষ্ণুপুরের প্রবীণ পুরাতত্ত্ব গবেষক চিত্তরঞ্জন দাশগুপ্তর স্মরণে একটি মঞ্চ করা হয়েছে যেখানে শহরের বিশিষ্ট মানুষরা সংস্কৃতি চর্চার পাশাপাশি পুরাতত্ত্ব বিষয়ে আলোচনা করবেন। পুলিশ প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে মেলার ৫ দিন মেলা প্রাঙ্গণে যাওয়ার সব রাস্তায় যান নিয়ন্ত্রণ করে দুপুর ২টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত ‘নো এন্ট্রি’ করা হয়েছে।

এই মুহূর্তে

x