31.3 C
Durgapur
Monday, July 26, 2021

পুজোয় সেজে উঠছে বিষ্ণুপুরের গোপালগঞ্জ

নরেশ ভকত, বাঁকুড়াঃ সেখানকার মাটি না আনলে সম্পূর্ণ হয় না দেবীমূর্তি। কাঠামোয় এই মাটি লেপে তবেই মৃন্ময়ী রূপ পায় চিন্ময়ীর। যৌনপল্লী বা পতিতালয় বলে সমাজ ওদের যতই দূরে সরিয়ে রাখুক না কেন মায়ের কাছে সবাই সমান । বরং, ওদের কদর খানিকটা বেশি। তাই তো প্রতিবছর প্রতিটি বাড়ির ঠাকুরদালানে ,পাড়ার মণ্ডপে মন্ডপে মায়ের মূর্তি গড়ে ওঠে নিষিদ্ধপল্লীর মাটি দিয়েই। শাস্ত্র অনুযায়ী এটাই নিয়ম।

কিন্তু উৎসবে অনুষ্ঠানে ওরা এখনো ব্রাত্য। সেই খেদ মেটাতেই বিগত কয়েক বছর ধরে দুর্গাপুজো করে আসছেন গোপালগঞ্জের (Gopalganj) যৌনকর্মীরা। এলাকার আট থেকে আশি সকলেই মেতে ওঠেন দুর্গাপুজোর আনন্দে ।

নিজেদের উদ্যোগে যৌনকর্মীরা এতদিন এই পুজো করে এলেও এবছরের ছবিটা অন্যরকম। পুজো আসছে ঠিকই কিন্তু মন ভালো নেই বিষ্ণুপুরের গোপালগঞ্জের(Gopalganj) যৌনকর্মীদের । কারণ, করোনা পরিস্থিতির কারনে তাদেরও রোজগার কমেছে অনেকটাই । সংসার চালাতে গিয়ে এমনিতেই হিমশিম অবস্থা, তার উপর পুজোর আয়োজন। তাই এবছর পুজোর বাজেটেও কাটছাট করা হয়েছে। অন্যান্য বছরের মতো জৌলুস থাকছে না এবছরের পুজোয়।

তবে রাজ্য সরকার পুজো কমিটিগুলোকে ৫০০০০ টাকা আর্থিক অনুদান দেওয়াতে কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরেছে । তাই মুখ্যমন্ত্রীর এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন তারা ।পাশাপাশি, স্থানীয় কাউন্সিলর এই পুজোয় তাদের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেবেন বলে জানিয়েছেন ।

এক যৌনকর্মী জানান , অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছরের দুর্গাপুজো সম্পূর্ণ আলাদা তাই আমরা নিজেরা কিছু কিছু দিয়ে এবং রাজ্য সরকার যে অনুদান দেবে তাই দিয়েই পুজো সম্পন্ন করব ।
স্থানীয় (Gopalganj) কাউন্সিলর উদয় ভকত জানান, আমরা সর্বদাই বিষ্ণুপুর পৌরসভা যৌনকর্মীদের পাশে রয়েছি । স্থানীয় কাউন্সিলর হিসেবে আমি যতটুকু পারবো আর্থিকভাবে তাদের পাশে থাকবো ।

এই মুহূর্তে

x