25.4 C
Durgapur
Friday, April 16, 2021

শুরু দুর্গাপূজার কাউন্টডাউন, রাজ্যের দুই প্রান্তে ৬৯ টি পুজোর উদ্বোধন মুখ্যমন্ত্রীর

ডিজিটাল ডেস্ক, জেলার খবর : দুর্গাপুজোর বাকি আর হাতে গোনা কয়েকটা দিন। কাউন্টডাউন শুরু গোটা রাজ্য জুড়েই। হোক না করোনা কাল ! তাবলে কি বাঙালির একমাত্র মেগা ফেস্টিভালে (durga puja) কোনরকম ছেদ পড়তে পারে ? যদিও করোনা আমাদের জীবনের স্বাভাবিক ছন্দে অনেকখানিই প্রভাব বিস্তার করেছে। করোনার ফলে এক্কেবারে বদলে গিয়েছে আমাদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রার ছবিটা।

আর বাঙালির এই মেগা ফেস্টিভ্যালে (durga puja) যে করোনা তার কড়াল থাবা আরও জাকিয়ে বসবে আমাদের ওপর তারই শঙ্কায় এখন রাতের ঘুম উড়েছে প্রশাসনের। আর এই কারণেই মানুষের জীবনকে করোনার প্রভাব থেকে যতটা সম্ভব দূরে রাখা যায়, তার জন্যই এবার এই মেগা ফেস্টিভ্যালে (durga puja) আনা হয়েছে নানান রকমের বিধি-নিষেধ, সাথে হরেক রকমের নিয়মাবলী।

করোনার প্রভাব থেকে আপামর বাঙালিকে দূরে রাখতে দিন-রাত এক করে কাজ করছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় ও। প্রতিবছরই দুর্গাপুজোয় (durga puja) শুধু কলকাতায় নয়, রাজ্যের বিভিন্ন্য প্রান্তের পুজোগুলি উদ্বোধন করেন তিনি। কিন্তু এবছর করোনার প্রভাবে নিজে স্ব-শরীরে পুজো মণ্ডপে উপস্থিত না থাকতে পারলেও একেবারে ভার্চুয়ালি পুজো মণ্ডপের উদ্বোধন করলেন তিনি। তাও একটা-দুটো নয়, একেবারে ৬৯ টা পুজোর উদ্বোধন, রাজ্যের দুই প্রান্তের। বুধবার নবান্নের সভাঘর থেকে ভারচুয়ালি উত্তরবঙ্গ এবং দক্ষিণবঙ্গ মিলিয়ে মোট ৬৯টি পুজোর উদ্বোধন করলেন রাজ্যের প্রশাসন প্রধান। মা দুর্গার কাছে করোনামুক্ত, দাঙ্গামুক্ত, অন্যায়মুক্ত পৃথিবীরও কামনা করলেন তিনি।

বুধবার এই ভার্চুয়ালি পুজো উদ্বোধনের পর্ব শুরু হয় উত্তরবঙ্গ দিয়ে। উত্তরবঙ্গের কোচবিহার, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং এর পর তিনি চলে আসেন দক্ষিণবঙ্গে। নদিয়া, মুর্শিদাবাদের পুজো উদ্বোধন করেন তিনি। এই প্রথমবার নবান্নের সভাঘর থেকে ভারচুয়ালি পুজোর উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী। নিউ নর্মাল পরিস্থিতিতে উমাকে স্বাগত জানানোর জন্য নবান্নের সভাঘরকে পুরোপুরি অন্যরকমভাবে সাজিয়ে তোলা হয়েছে বলেও জানান তিনি। এছাড়া করোনা পরিস্থিতিতে এভাবে পুজো উদ্বোধনের জন্য মাঝে মাঝে আক্ষেপও প্রকাশ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বারবার জেলাসফরের স্মৃতি রোমান্থন করতেও শোনা যায় তাঁকে।

এদিনের পুজো উদ্বোধনের ভারচুয়াল অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকে বারবার মা দুর্গার কাছে করোনা দূর করে আবার সুন্দর পৃথিবী ফিরিয়ে দেওয়ার প্রার্থনা জানান তিনি। ঠিক অনুষ্ঠানের শেষলগ্নে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “অন্যায় থেকে, সংকট থেকে, দাঙ্গা থেকে সকলকে মুক্ত করো মা।” রাজনৈতিক মহলের মতে, এই প্রার্থনার মধ্য দিয়ে তিনি নাম না করে কার্যত বিজেপিকেই খোঁচা দিয়েছেন। কারণ, এর আগে একাধিকবার গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে ধর্মীয় মেরুকরণের রাজনীতি করার অভিযোগ উঠেছে। সেদিক থেকে মুখ্যমন্ত্রীর প্রার্থনা যথেষ্ট ইঙ্গিতবহ বলেই মনে করছেন অনেকেই।

এই মুহূর্তে

x