25.4 C
Durgapur
Sunday, January 17, 2021

অবৈধ বালি, ফ্লাই অ্যাশ মজুত করে নষ্ট করা হচ্ছে জমি, এলাকা পরিদর্শনে সরকারি আধিকারিকরা

উদয় সিং , আসানসোল: ফ্লাই অ্যাশ ফেলে, বালি মজুদ করে নষ্ট করা হচ্ছে জমি (Land) , রাণীগঞ্জ থানার নবীনগরের বাসিন্দা মুস্তাক খানের এই অভিযোগের পরেই নড়েচড়ে বসল প্রশাসন । অভিযোগ, ২ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে রানীগঞ্জের মঙ্গলপুর শিল্প তালুকের পাশে গ্লাস ফ্যাক্টরি জমি ও তৎসংলগ্ন এলাকার ওই জমিতে পাহাড় প্রমান বালি মজুত করে রেখেছেন বালি ব্যবসায়ী তথা জমির মালিক মহেন্দ্র শর্মা ।

জমির অপর মালিক তথা রানীগঞ্জের নবীনগরের বাসিন্দা মুস্তাক খান জানান, মহেন্দ্র শর্মা যেভাবে গোটা জমিতে (Land) ফ্লাই অ্যাশ ফেলে, জমির চরিত্রবদল করে এলাকার পুকুর কুয়ো ভরাট করে বালির মজুদ করে তুলেছেন তার জেরে ভরাট হয়ে গিয়েছে ওই অংশের পুকুর-কুয়ো । সেই সঙ্গে ফ্লাই অ্যাশের কারনে চরম দূর্ভোগে পড়েছে স্থানীয় এলাকাবাসী। জমির পাশে থাকা কবরস্থানও নষ্ট হতে বসেছে। তিনি এর প্রতিবাদ করায় মহেন্দ্র শর্মা তাকে হুমকি দেয় বলে অভিযোগ। বাধ্য হয়ে মহেন্দ্র শর্মার বিরুদ্ধে তিনি কোর্ট থেকে ইনজাংশন জারি করেন । কিন্তু জমির অপর মালিক মহেন্দ্র শর্মা সে সব কিছু পরোয়া না করেই জমিতে (Land) ক্রমাগত বালি মজুত শুরু করেছেন ।

মুস্তাক খানের আরও দাবি, এই বালি মজুদের জেরে ওই বিস্তীর্ণ অংশের গো-চারণ ক্ষেত্র নষ্ট হয়ে যাচ্ছে, নষ্ট হয়েছে আশেপাশের গাছগাছালি । অবিলম্বে এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের কাছে আবেদন করেন তিনি । সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার গ্রিন ট্রাইবুনাল বোর্ডের বিশেষ দল মঙ্গলপুরে ওই এলাকা পরিদর্শনে আসেন। সরকারি আধিকারিকদের এই দলের মধ্যে ছিলেন গ্রিন ট্রাইবুনাল বোর্ডের সদস্য, জেলাশাসক দপ্তরের সদস্য ,আসানসোল এস ডি এল এন্ড এল আর ও, এটিএম এন্ড ডি এল এন্ড এল আর ও, রানীগঞ্জ বি এল আর ও। সংশ্লিষ্ট এলাকা পরিদর্শনের পর আধিকারিকরা কোনও মত প্রকাশ না করলেও এদিনের সব রিপোর্ট দপ্তরে জমা দেওয়া হবে বলে জানান তারা ।

এই মুহূর্তে

x