28.4 C
Durgapur
Sunday, August 1, 2021

বিশ্বভারতীতে নির্মীয়মান গেটের সামনে বিক্ষোভে বসল ছাত্র-ছাত্রীরা

শুভময় পাত্র , বীরভূম: নির্মীয়মান গেটের সামনে বসে এবার বিক্ষোভে সামিল হল বিশ্বভারতীর ছাত্র-ছাত্রীরা (Students) । কিছুদিন আগে হাইকোর্টের প্রতিনিধিদল ও বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ এই সমস্যা সমাধানে প্রশাসনের উপস্থিতিতে বৈঠকে বসে । সেই বৈঠকের পরই শান্তিনিকেতন পৌষ মেলার মাঠ ঢোকার গেট তৈরীর কাজ শুরু হয় ।

এর আগে পৌষ মেলার মাঠ ঘেরাকে কেন্দ্র করে চরম অস্থির পরিস্থিতি সৃষ্টি হয় বিশ্বভারতীতে। প্রতিবাদ-বিক্ষোভের নামে বুলডোজার দিয়ে ভেঙে ফেলা হয় পৌষ মেলা মাঠ ঢোকার গেট। নষ্ট করা হয় প্রাচীর তৈরির নির্মাণ সামগ্রী থেকে শুরু করে আরো অনেক কিছু ।

বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ এই নিয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হলে হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ ৪ সদস্যের এক প্রতিনিধি দলকে বিশ্বভারতীতে পাঠান। বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে চার সদস্যের প্রতিনিধি দল সমস্ত এলাকা ঘুরে দেখার পর বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠকে বসেন। বীরভূম জেলা সমাহর্তা মৌমিতা গোদারা বসু, বীরভূম জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিং এর সহযোগিতায় পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখেন।

কিন্তু , ছাত্র-ছাত্রী (Students) ,প্রবীণা আশ্রমিক ও অধ্যাপক অধ্যাপিকাদের সঙ্গে কোনরকম আলোচনায় বসে নি এই চার সদস্যের এই প্রতিনিধি দল। বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠকের পর সিদ্ধান্ত হয় সাত দিনের মধ্যে পৌষ মেলা ঢোকার গেট তৈরির কাজ শুরু করতে হবে। পাশাপাশি পৌষ মেলা মাঠ ঘিরে ফেলা নিয়ে সঠিক কোনো সিদ্ধান্ত না হলেও বিচারপতিদের প্রতিনিধিদল বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে দেন চাইলে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ তারকাঁটা দিয়ে মেলার মাঠ ঘিরতে পারেন।

হাইকোর্ট নির্বাচিত প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বিশ্বভারতীর বৈঠকের পরে পরেই গেট নির্মাণ কাজ শুরু করে দেয় বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ। এতেই ক্ষোভ সৃষ্টি হয় বিশ্বভারতীর ছাত্র-ছাত্রীদের (Students) মধ্যে। তাদের অভিযোগ বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ তথা উপাচার্য অধ্যাপক বিদ্যুৎ চক্রবর্তী নিজের খুশিমতো কাজ করছেন।

ছাত্র-ছাত্রী (Students) , প্রবীণ আশ্রমিক, অধ্যাপক-অধ্যাপিকাদের সঙ্গে কোনরকম আলোচনা না করেই গেট তৈরীর কাজ শুরু করে দিয়েছেন, ভবিষ্যতে মেলার মাঠ ঘেরার কাজও হয়তো শুরু করে দেবেন। সেই কারণে এক অনিশ্চয়তার মধ্যে থেকে বিশ্বভারতীর ছাত্র-ছাত্রীদের (Students) একাংশ এদিন নির্মীয়মান মেলার মাঠের গেটের সামনে হাতে প্ল্যাকার্ড নিয়ে বিক্ষোভে সামিল হয়।

তাদের বক্তব্য ভবিষ্যতে যদি বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ তাদের সঙ্গে আলোচনা না করে কোনও বৃহত্তর সিদ্ধান্তে উপনীত হয় তাহলে তারাও তাদের আন্দোলন গণতান্ত্রিক পদ্ধতি মেনে চালিয়ে যাবে।

এই মুহূর্তে

x